admin Date & Time : 07/04/2018 12 Print

মুন্সিগঞ্জে মওদুদের সমাবেশে ১৪৪ ধারা

img

মুন্সিগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলায় একই স্থানে একই সময়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পাল্টাপাল্টি সভা আহ্বান করায় সভাস্থল ও আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমেদকে এ সভায় প্রধান অতিথি থাকার কথা ছিল।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আজ শনিবার সকাল ১০টায় বালিগাঁও ইউনিয়নের নয়াগাঁও গ্রামে জেলা বিএনপির কর্মিসভার অনুমতি চেয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেছিল দলটি। এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন মওদুদ আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলনের থাকার কথা ছিল।

এর আগে গতকাল শুক্রবার রাতে প্রশাসন সভাস্থল ও আশপাশে ১৪৪ ধারা জারি করে। আজ সকাল ছয়টা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা বলবৎ থাকার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হাসিনা আক্তার প্রথম আলোকে বলেন, ‘বালিগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আজগর হোসেনের স্বাক্ষরিত একটি অবহিতকরণ পত্র পেয়েছিলাম। এর মাধ্যমে জানতে পারলাম, জেলা বিএনপি যে স্থানে কর্মিসভা ডেকেছে, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ওই একই স্থানে সভা ডেকেছে। এ অবস্থায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কা থাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। জনসাধারণের নিরাপত্তার জন্য মাইকিংয়ের মাধ্যমে শুক্রবার রাত নয়টার দিকে সবাইকে জানানো হয়েছে।’

মুন্সিগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ‘জেলা বিএনপির সভাটি আয়োজনের জন্য সব মৌখিক অনুমিত নেওয়া হয়েছিল। এত জায়গা থাকতে আমাদের সভাস্থল এলাকায় কেন আওয়ামী লীগ হুট করে সভা ডেকেছে, তা সাধারণ মানুষের বুঝতে বাকি নেই।’ এ আচরণের নিন্দা জানান তিনি।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জগলুল হালদারের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের সভা ডাকার বিষয়টি তাঁর জানা নেই। সভা ডাকার বিষয়ে কেউ তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করেনি।

বালিগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আজগর হোসেন প্রথম আলোকে জানান, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে কর্মিসভা করা হয়েছে। এ ধারাবাহিকতায় বালিগাঁও ইউনিয়নে আমরা কর্মিসভা আয়োজনের উদ্যোগ নিই।

টঙ্গিবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইয়ারদৌস হাসান জানান, আজ সকাল ছয়টা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি থাকবে। পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আছে। যেকোনো আপত্তিকর অবস্থার জন্য পুলিশ প্রস্তুত রয়েছে।

বিষয় ভিত্তিক সংবাদ